সাধের অনুষ্ঠানের গুরুত্ব | Baby Shower Tradition in Bengali

Baby Shower Tradition in Bengali

Image: Shutterstock

IN THIS ARTICLE

সাধের অনুষ্ঠান সবার কাছেই আনন্দের অনুষ্ঠান নামেই পরিচিত ও গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে এটি আরও আনন্দের । গর্ভাবস্থায় মহিলাদের অনেক ধরণের সীমাবদ্ধতার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়। কিন্তু এই দিনে তারা আনন্দে মেতে ওঠে, কিন্তু সাবধানতারও প্রয়োজন কারণ অনেক লোকের সমাগম হয়। সাধের অনুষ্ঠানের দিন তারা আত্মীয় পরিজনদের সাথে দেখা করতে পারেন, ভালো-মন্দ খেতে পারেন, ফলে মন ভালো হয়ে ওঠে। যা গর্ভাবস্থার শেষের দিককে আরও স্মরণীয় করে তোলে।

সাধের অনুষ্ঠান কি ? | Baby Shower Meaning In Bengali

প্রায় সব দেশেই গর্ভাবস্থার শেষ সময়ে হবু মায়েদের নিয়ে অনুষ্ঠান করার রীতি প্রচলিত। বাংলাদেশসহ পশ্চিম বাংলায় গর্ভাবস্থার সাত মাসে হবু মায়েরা শাড়ি-গহনাসহ নানা উপহার পেয়ে থাকেন । বাঙালি হিন্দুদের মধ্যে এটি একটি অত্যাবশ্যক আচার হলেও যুগ যুগ ধরে চলে আসলেও এই অনুষ্ঠান এখন হিন্দু-মুসলিম সবাই কম-বেশি পালন করেন। হিন্দিতে একেগোদ ভারাই নামে পরিচিত। উত্তর ভারতের হিন্দু নারীর জন্য এই বিশেষ অনুষ্ঠানে হবু মায়ের কোল-ভর্তি করে উপহার সামগ্রী দেওয়ার পাশাপাশি তাকে ঘিরে গান-বাজনা-নাচও করা হয় ।

আগে শুধু মহিলারাই এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতেন কিন্তু এখন ছেলেরাও এই অনুষ্ঠানে যোগদান করেন।

সাধের অনুষ্ঠান কবে হয় ?

গর্ভাবস্থার সাত মাসে এটি হবু মায়েদের জন্য অনুষ্ঠিত হয়। শ্বশুরবাড়িতে সাধের অনুষ্ঠান হওয়ার পর বাপের বাড়িতেও এই অনুষ্ঠান সম্পাদিত হয়। বাপের বাড়িতে এটি নয় মাসের শুরুতে হয়ে থাকে।

সাধের অনুষ্ঠান কিভাবে সম্পাদিত হয় ?

সাধের অনুষ্ঠানে জন্মের পূর্বে বাড়ির গুরুজনেরা হবু মা ও আগত শিশুকে আশীর্বাদ করে থাকেন । এটিকে হবু মায়ের আসন্ন মাতৃত্ববোধ উদযাপনের একটি অনুষ্ঠান হিসেবেও ধরা হয়।

  • শ্বশুরবাড়ি ও বাপের বাড়ি উভয় বাড়ি থেকেই আলাদা করে এই অনুষ্ঠান হয়ে থাকে। অনেকে আবার এক সাথেও এই অনুষ্ঠান করে থাকেন।
  • আগে শুধু মহিলারাই এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করতেন কিন্তু এখন ছেলেরাও এই অনুষ্ঠানে যোগদান করেন।
  • হবু মা সুন্দর করে সাজ গোজ করেন। নতুন শাড়ি পড়ার রীতি আছে সাধের অনুষ্ঠানে।
  • আমন্ত্রিতরা হবু মায়ের জন্য নানা ধরণের উপহার নিয়ে আসেন।
  • আর যদি কেউ আগত বাচ্চার জন্য কোনো উপহার আনে, তাহলে সেটি তখন রেখে দেওয়া হয় পরে ব্যবহার করার জন্য। অনেকে মনে করেন, সাধের অনুষ্ঠানের সময় আগত বাচ্চার জন্য কিছু না দেওয়া উচিত নয় , একে অশুভ মনে করা হয়।
  • যদি কেউ দিয়ে থাকেন তা খুলে দেখা হয় না এবং ব্যবহারও করা হয় না।
  • সাধারণত দুপুর বেলা এই অনুষ্ঠান হয়ে থাকে। তাই আমন্ত্রিতদের জন্য খাবার খাওয়ার ব্যবস্থা করা থাকে।
  • অনেকে নাচ গানেরও আয়োজন করেন, যাতে হবু মায়ের মন ভালো থাকে। তবে এই রীতিটি অবাঙালিদের মধ্যেই বেশি দেখা যায়।

সাধের অনুষ্ঠানের গুরুত্ব

সাধের অনুষ্ঠানের মূল গুরুত্ব হল বাড়ির গুরুজনেরা হবু মা ও আগত বাচ্চাকে আশীর্বাদ করা এবং আসন্ন মাতৃত্ববোধের উদযাপন। যেহেতু এই অনুষ্ঠানে অনেকে আমন্ত্রিত থাকে, তাই হবু মায়ের শরীরের ওপর যেন কোনো চাপের সৃষ্টি না হয় তার দিকে নজর রাখা প্রয়োজন।

সাধের অনুষ্ঠানে হবু মায়ের জন্য কিছু টিপস

সাধের অনুষ্ঠান যেহেতু প্রায় পুরো দিন ধরেই মোটামুটি চলতে থাকে, তাই হবু মায়ের জন্য এটি খুবই ক্লান্তিকর। সেই জন্য এই দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য নিচে কিছু টিপস দেওয়া হল।

  • অনুষ্ঠান শুরু হওয়ার আগে ভালোভাবে ঘুমিয়ে নেবেন বা বিশ্রাম করে নেবেন।
  • হালকা ধরণের শাড়ি বা পোশাক পড়ার চেষ্টা করুন। বেশি ভারী ধরণের গয়না পড়বেন না।
  • প্রচুর পরিমানে জল খাওয়ার চেষ্টা করুন, শরীরে জলের কমতি হলে ডিহাইড্রেশনের সমস্যা হতে পারে।
  • তেল মশলা জাতীয় খাবার কম খাওয়ার চেষ্টা করুন।
  • পায়ে আলতা পড়তে হলে কাউকে পরিয়ে দিতে বলা উচিত।

সাধের অনুষ্ঠানের জন্য সুন্দর গানের তালিকা

বাঙালিদের সাধের অনুষ্ঠানে সাধারণত গান বাজনা হয় না, কারণ বাড়ির গুরুজনেরা অনেকেই তা পছন্দ করেন না। তবে এখন অনেকেই নাচ গান বাজনা করে থাকেন। নিচে দুটি গানের নাম উল্লেখ করা হল।

  • “ছোটিসি পেয়ারিসি নানহি সি ” – আনাড়ি
  • “ চন্দ্র যে তুই, মোর সূর্য যে তুই ” – আরাধনা

সাধের অনুষ্ঠানের জন্য গেমের আইডিয়া

সাধের অনুষ্ঠানকে মজাদার করে তুলতে নানা ধরণের খেলাও খেলতে পারেন।

  • প্রেগন্যান্ট অবস্থায় হবু মায়ের ঠিক কি খেতে ইচ্ছে করছে, তার উত্তর দেওয়া নিয়ে একটি খেলা খেলতে পারেন। যে বেশি সংখ্যায় সঠিক খাবারের নাম বলতে পারবে সে জিতবে।
  • আগত বাচ্চা ঠিক কোন দিনে হবে, এই নিয়ে আমন্ত্রিতদের উত্তর দিতে বলুন ও একটি ক্যালেন্ডারে নোট করে রাখতে হবে। ডেলিভারির পর তাহলে মা সহজেই বুঝতে পারবেন কে সঠিক উত্তর দিয়েছিলেন।
  • এছাড়া গানের লড়াই ও খেলতে পারেন দল ভাগ করে নিয়ে। বাড়ির ছোট বড়ো সবাইকে নিয়ে এই খেলায় আনন্দ পাওয়া যায়।
  • বাড়ির কোনো সদস্য নৃত্য পরিবেশন করতে পারে। তাই যদি কয়েকজন এই বিষয়ে আগ্রহী হয় তাহলে একটি কম্পিটিশনের ব্যবস্থাও করা যেতে পারে।

সাধের অনুষ্ঠান মজাদার করে তোলার কয়েকটি আইডিয়া

  • সাধের অনুষ্ঠানের কোনো নির্দিষ্ট থিম অনুযায়ী প্ল্যান করতে পারেন। চাইলে আমন্ত্রিতদের আগে থেকে এ সম্পর্কে বলে রাখতে পারেন, যাতে ওই থিমের সঙ্গে মানানসই পোশাক পড়ে আসেন।
  • কোনো নির্দিষ্ট রঙের পোশাক বা কালার শেড বলে দিতে পারেন আমন্ত্রিতদের।
  • সাধের অনুষ্ঠানের জন্য কোনো খরচ সাপেক্ষ জায়গা না বেছে বাড়ির মধ্যেই কোনো অংশ DIY এর মাধ্যমে তা করে তুলতে পারেন আকর্ষণীয়।
  • আর যদি আবহাওয়া ভালো থাকে তবে খোলা আকাশের নিচেও এই অনুষ্ঠান করতে পারেন।

বাঙালিদের বেবি শাওয়ার অনুষ্ঠানে আদর্শ খাবারের মেনু

বাঙালি মানেই মাছ। তা সে এপার বাংলা বা ওপার বাংলা যাই হোক । আর হবু মা যদি মাছ ভালোবাসে, তাহলে তো আর কথা নেই।

  • মূলত মাংসের পদের থেকে মাছের পদ বেশি হয়।
  • হবু মায়ের জন্য পাঁচ রকম ভাজা তো থাকবেই থাকবে।
  • আর মাংস হলে পাঁঠার মাংসের চাহিদা বেশি এই অনুষ্ঠানে।
  • তবে হবু মায়ের কি পছন্দ তা মাথায় রেখেই যেন মেনু ঠিক করা হয়, কারণ তার জন্যই এই অনুষ্ঠান।

প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী :

  • হবু মায়ের সাধের অনুষ্ঠানের জন্য কিভাবে তৈরী হওয়া উচিত ?

উঃ বেশিরভাগ হবু মায়েরা সাধের অনুষ্ঠানে শাড়ি পড়তেই পছন্দ করেন। কিন্তু বেশি ভারী শাড়ি না পড়াই ভালো। সাজ গোজ নিজের ইচ্ছে মতো করতেই পারেন, তবে ভারী গয়নার থেকে দূরে থাকাই ভালো।

  • সাধের অনুষ্ঠান কি দ্বিতীয় সন্তানের জন্যও হয় ?

উঃ সাধের অনুষ্ঠান দ্বিতীয় সন্তানের জন্যও করা হয়ে থাকে। তবে প্রথম সন্তানের ক্ষেত্রে বড়ো করে করা হয়ে থাকে। তবে ঘরোয়া ভাবে দ্বিতীয় সন্তানের ক্ষেত্রেও করা হয়।