আপনি যদি প্রেগন্যান্ট হন, তাহলে এই বিষয়গুলির সাথে নিশ্চয়ই পরিচিত

আপনি যদি প্রেগন্যান্ট হন, তাহলে এই বিষয়গুলির সাথে নিশ্চয়ই পরিচিত

Image: Shutterstock

প্রেগন্যান্সি আপনার প্রতিটি দিনকে এক অন্যভাবে দেখতে শেখায় । আপনি যদি এই সময় আপনার চিন্তাভাবনাগুলি নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করেন তবে আপনি বুঝবেন আপনার জীবনে আমূল পরিবর্তন এসেছে। কিন্তু কিছু ছোট ছোট জিনিস রয়েছে যা আপনি বুঝতে পারেননি এই সময় হতে পারে। এই তুচ্ছ জিনিসগুলি কোনও হবু মায়ের কাছে কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা আজ আমরা জানবো।

চলুন, শুরু করা যাক।

১. অনেকবার বাথরুম যাওয়া

আপনি যখন ঘুমোচ্ছেন, তখন বারবার টয়লেট যাওয়া বেশ বিরক্তিকর, এই সময় এটি হওয়া কিছু অস্বাবাভিক নয়। কারণ এই সময় আপনার বৃদ্ধি পাওয়া পেট আপনার মূত্রাশয়ের উপর চাপ ফেলে, যার ফলে ওই অবস্থার সৃষ্টি হয়। কম জল পান করেও এর সুরাহা করতে পারবেন না। তাছাড়া, প্রেগন্যান্সিতে নিজেকে হাইড্রেটড রাখা অত্যন্ত জরুরি।

২. পোষাক ছোট হওয়া

প্রেগন্যান্সির সেই পর্যায়ে যখন আপনার নিয়মিত কুর্তিগুলি ছোট হবে বা ট্রাউজারগুলির বাটন বন্ধ করতে পারবেন না, খুব বিরক্তিকর হতে পারে। ধীরে ধীরে আপনি মেনে নেবেন যে আগের জামা গায়ে হওয়া সম্ভব না এখন।

৩. আপনার পছন্দের খাবার আর পছন্দের নয়

আপনার পছন্দের খাবার আর পছন্দের নয়

Image: iStock

আর একটি বাজে জিনিস হল প্রেগন্যান্ট অবস্থায় আপনার প্রিয় খাবারগুলি হয়তো আপনার আর খেতে ভালো লাগবে না, সামনে থাকলেও খাবার ইচ্ছেপ্রকাশ করবেন না । এমনকি, সেগুলি দেখলে বমি বমি ভাবও আসতে পারে। চিন্তা করবেন না, এই ব্যাপারটি এটি সারাজীবন থাকবে না।

৪. বডি ইমেজ

বডি ইমেজ

Image: iStock

যদি আপনি ফিটনেস সম্পর্কে খুব সচেতন হন ও নিজেকে স্লিম রাখতে ভালোবাসেন , তাহলে আপনার ক্রমাগত প্রসারিত কোমর আপনাকে উদ্বেগ এনে দিতে পারে। তবে আপনাকে মনে রাখতে হবে, আপনার ভিতরে একটি প্রাণ ধীরে ধীরে বেড়ে উঠছে । তাই এই কদিন এসব ভুলে আনন্দে থাকুন।

৫. বেন্ড হওয়া

বেন্ড হওয়া

Image: Shutterstock

শেষ ত্রৈমাসিকের সময় থেকে বেন্ড হওয়া একদমই উচিত নয় এবং আপনি পারবেন ও না । ঝুঁকে পড়ে যেসব কাজ করতে হয়, তা অন্য কাউকে বলুন করতে। ইচ্ছে করলেও এই ঝুঁকি নেবেন না।

৬. বাইরে ঘুরতে যাওয়া উপভোগ করতে সক্ষম হবেন না

আপনি যখন গর্ভবতী হন, তখন আপনার ত্বকটি খুব সংবেদনশীল হয়ে যায় এবং সূর্যের আলোতে ত্বকে নানা ফুসকুড়ির কারণ হতে পারে এবং অল্পতেই অস্বস্তি বোধ করতে পারেন । এর পাশাপাশি শরীরও সব সময় ভালো লাগবে না। সুতরাং, আপনাকে বাড়িতে থাকাই শ্রেয়।

৭. মনের গভীরে নানা কথা জমা হয়

মনের গভীরে নানা কথা জমা হয়

Image: iStock

প্রতিটি কাটানো মাসের সাথে, আপনি আপনার গর্ভের বাচ্চার ক্রমবর্ধমান আকার কয়েকটি ফলের আকারের সাথে সাদৃশ্য শুরু করেন, যেমন – আঙুর, কমলা লেবু থেকে শুরু করে তরমুজ পর্যন্ত! এই সময় মহিলারা আবেগপ্রবণ হয়ে ওঠে, এর মূল কারণ হল হরমোনের তারতম্য।

উপরে উল্লেখিত সব বিষয়ই ক্ষণস্থায়ী। তাই মাতৃত্বের এই দুর্দান্ত সময়টি এগুলি নিয়ে ভেবে কাটিয়ে দেবেন না যেন ! ভাবুন তো আর কিছুদিনের মধ্যে আপনার ঘরে একটি পুচকু আসছে , আর ছোট্ট ছোট্ট হাত পা নিয়ে আপনি খেলছেন, আহা কি সুন্দর মুহূর্ত।