সূর্যগ্রহণ কি গর্ভবতী মহিলাদের জন্য ক্ষতিকর ?

Image: iStock

প্রেগন্যান্সির নয় মাস যে কোনও মহিলার কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ । প্রতিটি মা তার গর্ভের যে আছে, তার স্বাস্থ্য ঠিক আছে নাকি এই নিয়ে চিন্তায় থাকেন। গর্ভধারণের পর থেকেই নানা ধরণের নির্দেশাবলী আসতে থাকে হবু মায়ের কাছে । আর এগুলি তাকে বিভ্রান্ত করে তোলে, বিশেষত যদি এটি তার প্রথম গর্ভাবস্থা হয় তো।

গর্ভাবস্থায় সূর্যগ্রহণ এই নিয়ে নানা বিভ্রান্তি আছে । বছরের পর বছর ধরে, সূর্যগ্রহণ গর্ভবতী মহিলাকে প্রভাবিত করে কিনা তা নিয়ে  নানা মতভেদ চলে আসছে।

এটি কি সত্যিই অশুভ বা এর পিছনে কি কোনো বিজ্ঞান-ভিত্তিক যুক্তি আছে ? গর্ভাবস্থায় সূর্যগ্রহণের কি সত্যিই কোনও প্রভাব আছে ? আসুন এই প্রবন্ধে আমরা এই সম্পর্কে জানবো। নিচে কিছু তথ্য উল্লেখ করা হল যা আপনাকে এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে সহায়তা করবে যে এটি সত্যিই ক্ষতিকর কিনা।

সূর্যগ্রহণ কী ?

Image: Shutterstock

যখন পৃথিবী এবং সূর্যের মাঝে চাঁদ অবস্থান করে, তখন তাকে সূর্যগ্রহণ বলে । অর্থাৎ, চাঁদ, সূর্য ও পৃথিবী একই সরলরেখায় থাকে। নাসার মতে, সূর্য ওঠা ও অস্ত যাওয়ার মতো সূর্যগ্রহণকে একটি প্রাকৃতিক ঘটনা বলা যেতে পারে যা পৃথিবীর নির্দিষ্ট অবস্থান থেকে দেখা যায় যে চাঁদ সূর্যকে পুরোপুরিভাবে ঢেকে রাখে। যদি চাঁদ সমস্ত সূর্যকে ঢেকে না রাখে, তাহলে তাকে আংশিক সূর্যগ্রহণ বলে।

গর্ভাবস্থায় সূর্যগ্রহণ – এটি কি খারাপ?

বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন সংস্কৃতিতে বিভিন্নভাবে এটির ব্যাখ্যা করা হয়।

অনেকেই সূর্যগ্রহণকে গর্ভবতী মহিলাদের জন্য খারাপ হিসাবে বিবেচনা করে, আবার এমন কেউ কেউ আছেন যারা এর সাথে একমত নন।

বৈজ্ঞানিকভাবে, গর্ভবতী মহিলাদের জন্য গ্রহণ (চন্দ্র ও সৌর উভয়ই) যে ক্ষতিকর তার কোনো প্রমাণ নেই।

যাইহোক, এই ব্যাপারটিকে যুক্তি দিয়ে দেখা খুবই উচিত।

Image: Shutterstock

শুধুই কি কুসংস্কার ?

সূর্যগ্রহণ কেবল গর্ভাবস্থার ক্ষতি করতে পারে না সাধারণভাবে এটি সবার জন্যই ক্ষতিকর কেন তা বলা হচ্ছে একবার দেখে নেওয়া যাক।

১. সূর্যের দিকে তাকাবেন না এবং বাড়ির ভিতরে থাকুন

হ্যাঁ, এটি ঠিক যে শুধু গর্ভবতীদের জন্য নয় বহু বছর ধরে আমাদের মধ্যে প্রচলিত যে সূর্যগ্রহণের সময় বাইরে বেরোনো উচিত নয় । আপনি গর্ভবতী না হওয়া সত্ত্বেও সূর্যগ্রহণের সময় সরাসরি সূর্যের দিকে তাকানো উচিত নয়। কারণ –

  • সরাসরি তাকালে সূর্যের বিকিরণ ক্ষতিকারক হতে পারে। আপনি যদি এটি দেখার পরিকল্পনা করেন তবে আপনার অবশ্যই যথাযথ সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত।
  • খালি চোখে সূর্যগ্রহণ দেখলে আপনার রেটিনার ক্ষতি হতে পারে।
  •  সুতরাং আপনি গর্ভবতী হোন বা না হোন , সূর্যগ্রহণের সময় সরাসরি সূর্যের দিকে তাকাবেন না কারণ এটি আপনার চোখের ক্ষতি করতে পারে। এমনকি দৃষ্টিশক্তি হারাতেও পারেন।

সুতরাং,  এটি প্রমাণিত যে এর পিছনে বিজ্ঞানসম্মত যুক্তি আছে।

২. গ্রহণের সময় খাবেন না বা  রান্না করবেন না

আপনি নিশ্চয়ই আপনার পরিবারের অনেকের কাছ থেকে সূর্যগ্রহণ সম্পর্কে নানা কথা শুনেছেন। এর মধ্যে একটি নির্দেশ হল গ্রহণের সময় সম্পূর্ণরূপে খাওয়া, পান করা বা রান্না করা এড়ানো উচিত । জানেন কি যে এর সত্যতা আছে । কীভাবে এবং কেন জানুন।

  • এই পৃথিবীতে সূর্যের রশ্মি না থাকলে পৃথিবী পুরোটাই প্রচুর ক্ষতিকারক জীবাণুতে ভর্তি হয়ে যেত । গ্রহণের সময় এটিই ঘটে।
  • সূর্য অবরুদ্ধ হওয়ার কারণে, এর রশ্মিগুলিও পৃথিবীতে প্রবেশ করতে পারে না। ফলস্বরূপ, তাপমাত্রায় হঠাৎ হ্রাস ঘটে।
  • এই তাপমাত্রা হ্রাস এবং সূর্য রশ্মি না প্রবেশ করতে পারার ফলে ফলে ব্যাকটেরিয়া এবং ক্ষতিকারক জীবাণু বৃদ্ধি পায়।
  • ফলে খাদ্যে তাড়াতাড়ি পচন ধরতে পারে বলে মনে করা হয়।

সুতরাং এর পিছনে যে বিজ্ঞানসম্মত যুক্তি আছে তা প্রমাণিত হল ।

এগুলি ছিল সূর্যগ্রহণ সম্পর্কে বিশ্বাস ও কুসংস্কারের গল্প । তবে মনে সংশয় থাকলে এ ব্যাপারে আপনি আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করে নিন এবং এতে আপনার মনের সংশয় অবশ্যই কেটে যাবে। সূর্যগ্রহণ হল প্রকৃতির একটি দর্শনীয় ঘটনা। এটিকে কখনোই অশুভ হিসাবে দেখা উচিত নয়।

যখন আপনার আপনজনেরা আপনাকে সূর্যগ্রহণের সম্পর্কে সতর্ক করে, তখন বুঝতে হবে এটি কেবল আপনার এবং আপনার সন্তানের সুরক্ষার জন্য । তারা আপনাকে তাদের বিশ্বাসের ওপর ভিত্তি করেই বলছে । তবে, আপনি জানেন যে এই নিয়মগুলি বিজ্ঞানের দ্বারাই জন্ম নিয়েছে।

আমরা আশা করি, এই প্রবন্ধটি আপনাকে সূর্যগ্রহণ  এবং গর্ভাবস্থা সম্পর্কিত আপনার সংশয়গুলি পরিষ্কার করতে সহায়তা করেছে।

নিজের যত্ন নিন ও সুস্থ থাকুন।