প্রসবের পরে কী খাবেন এবং কী খাবেন না? | what to eat after delivery in bengali

what to eat after delivery in bengali
IN THIS ARTICLE

সদ্য মা হয়েছেন ? জীবনটা অনেকটাই পাল্টে গেছে তাই না ? এই সময় অনেকেই নিজের ওপর নজর দিতে ভুলে যান বাচ্চার যত্ন করতে গিয়ে। কিন্তু তা করলে কিন্তু চলবে না। মনে রাখবেন, আপনি যদি অসুস্থ হন তাহলে আপনার বাচ্চাও সমস্যায় পড়বে। আর সুস্থ থাকার জন্য সবচেয়ে প্রয়োজন একটি সুন্দর ডায়েটের। তাই আমাদের এই প্রতিবেদনে প্রসবের বা ডেলিভারির পর প্রকৃত ডায়েট কি হওয়া উচিত, তা সম্পর্কে প্রয়োজনীয় তথ্য দেওয়া হবে।

ডেলিভারি বা প্রসবের পর কি কি খাদ্য তালিকায় রাখা উচিত ?

প্রত্যেক মায়ের প্রয়োজন বাচ্চা জন্মানোর পর একটি সুষম ডায়েটের। কারণ এই সময় শারীরিক ও হরমোনের পরিবর্তন হয়ে থাকে। তার পাশাপাশি যেহেতু বাচ্চা মায়ের দুধও পান করে, তাই আপনার প্রয়োজন অতিরিক্ত। প্রসবের পর খাদ্য তালিকায় কি কি রাখবেন তা নিচে উল্লেখ করা হল।

1. লো ফ্যাট যুক্ত ডেয়ারি প্রোডাক্ট

কম ফ্যাট যুক্ত দুধ, দই ও অন্যান্য দুগ্ধজাত প্রোডাক্ট অবশ্যই নিজের ডায়েটে রাখুন। কারণ এতে থাকে প্রচুর পরিমানে প্রোটিন, ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন বি । এগুলি আপনার শরীরকে সুস্থ করে তুলতে সাহায্য করবে।

2. চর্বিহীন মাংস

চর্বিহীন মাংসে থাকে আয়রন, প্রোটিন ও ভিটামিন বি ১২, যা আপনার শরীরে প্রয়োজনীয় এনার্জি তৈরী করবে এবং বাচ্চাকে দুধ খাওয়ানোর জন্য অনেকসময় শরীর ক্লান্ত হয়ে পড়ে, তা সহজেই দূর করবে।

3. ডাল

একটি আদর্শ ডায়েটে ডাল গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এতে থাকে প্রোটিন, ফাইবার, ভিটামিন ও মিনারেলস। মুসুর ডাল সেদ্ধ করে তাতে পরিমান মতো নুন, কাঁচা লঙ্কা, কাঁচা সর্ষের তেল ও কাচাঁ পেয়াঁজ মিশিয়েও খেতে পারেন, এটি খেতেও ভালো লাগবে এবং পুষ্টিকরও। ডাল শরীরে অতিরিক্ত মেদ জমতে দেয় না। তাই ডায়েটে এটি রাখতে ভুলবেন না কিন্তু।

4. শাক-সবজি

সবুজ শাক-সবজি নানা ধরণের ভিটামিন ও মিনারেলস দ্বারা পরিপূর্ণ। এছাড়াও এতে খুব কম পরিমানে ক্যালোরি  এবং ভরপুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্টে থাকে, যা ডেলিভারির পর শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে কার্যকরী।

5. ফল

নিয়মিত ভিটামিন সি যুক্ত ফল খাওয়ার অভ্যেস করুন, যেমন মুসাম্বি লেবু। কারণ এই সময় শরীরে ভিটামিন সি এর পাশাপাশি ক্যালসিয়ামের ও প্রয়োজন হয়। রোজ পাতিলেবুর শরবত বানিয়েও খেতে পারেন। এছাড়া প্রতিদিন অন্য যেকোনো একটি করে ফল খাওয়ার চেষ্টা করুন।

6. মাছ

নিয়মিত জ্যান্ত মাছ খাওয়ার চেষ্টা করুন ও বিশেষ করে ছোট মাছ খুবই উপকারী এই সময়ের জন্য।

7. ডিম

প্রচুর পরিমানে প্রোটিন থাকে ডিমে। ব্রেকফাস্টের সময় স্ক্র্যাম্বল এগ আর তার সাথে ব্রাউন ব্রেড খেতে পারেন বা ডিমের ওমলেট বা পোচ বানিয়েও খেতে পারেন।

8. জল

বাচ্চাকে দুধ খাওয়ানোর জন্য শরীর থেকে অনেকটাই জল বেরিয়ে যায়, তাই আপনার শরীরের এই সময়ে প্রয়োজন প্রচুর জলের। যাতে কোনো ভাবে ডিহাইড্রেশন না হয়। আর এনার্জির পরিমান ঠিক রাখতে দিনে কমপক্ষে চার লিটার জল খাওয়ার চেষ্টা করুন।

9. হলুদ গুঁড়ো

হলুদ গুঁড়োয় থাকে প্রচুর পরিমানে ভিটামিন ও মিনারেলস। তাই নিয়মিত দুধের সঙ্গে হলুদ মিশিয়ে খাওয়া খুবই উপকারী।

10. আমন্ড

আমন্ডে প্রোটিন ও ভালো ধরণের কোলেস্টেরল থাকে। নিয়মিত ঘুমাতে যাওয়ার আগে এটি ভিজিয়ে রাখুন ও সকালে উঠে খালি পেটে খান।

11. মেথি

মেথিতে আছে নানা ধররণের খাদ্যগুন যেমন ক্যালসিয়াম, আয়রন, ভিটামিন ও মিনারেলস। তাই বিভিন্ন তরকারিতে মিশিয়ে এটি খাওয়ার অভ্যেস রাখা উচিত।

12. তিল

বহুদিন ধরেই প্রসবের পর মহিলাদের তিলের নাড়ু খাওয়ানোর প্রচলন আছে। বলা হয়, এটি নাকি তাড়াতাড়ি নাড়ি শুকোতে সাহায্য করে।

13. শস্যদানা

শস্যদানা বলতে ওটস বা কর্ন ফ্লেক্সের কথা বলা হয়েছে , এগুলি আপনি অনায়াসে ব্রেকফাস্টে খেতে পারবেন। ওটসের খিচুড়ি বা পায়েস বানিয়েও খেতে পারেন।

ডেলিভারি বা প্রসবের পর কি কি খাবেন না?

1. তেল মশলা জাতীয় খাবার

মনে রাখবেন, এই সময় আপনি যা খাবেন তার প্রভাব পড়বে আপনার ছোট্ট সোনার ওপরে। তাই তেল মশলা জাতীয় খাবার খেলে আপনার সাথে সাথে আপনার বাচ্চারও পেটের সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই বাচ্চা হয়ে যাওয়ার পর ছয় মাস এই ধরণের খাবার না খাওয়াই ভালো (1)

2. ক্যাফিন

ক্যাফিন জাতীয় কোনো জিনিস যেমন অ্যালকোহোল, নিকোটিন এসব নিজের ডায়েটে ভুলেও রাখবেন না (2)। কফি খেলেও দিনে এক থেকে দুবার খাবেন।

3. অ্যালার্জি জাতীয় খাবার

যেহেতু আপনার বাচ্চা আপনার বুকের দুধ খাচ্ছে, তাই আপনি যা খাচ্ছেন তার প্রভাব ওর ওপর পড়তে বাধ্য। আর ছোটো বাচ্চার ঠিক কিসে অ্যালার্জি আছে, তা বোঝা খুব মুশকিল। তাই যেসব খাবারে মূলত অ্যালার্জি হয়ে থাকে, সেগুলি খাবেন না যেমন – মাশরুম, কাঁকড়া। ডাক্তারের সঙ্গে এই বিষয়ে একবার পরামর্শ করে নেবেন।

ডেলিভারির পর কি কি খাওয়ার অভ্যাস করা উচিত ?

ডেলিভারির পর খাবারের ক্ষেত্রে যে সব অভ্যেসগুলো করা উচিত সেগুলি নিচে উল্লেখ করা হল।

  • যখনই খিদে পাবে তখন খাবেন
  • অল্প পরিমানে খাবেন ও ধীরে ধীরে খাবেন
  • প্রত্যেকটি খাবারে যেন ভালো পরিমানে প্রোটিন থাকে
  • দুপুরের খাবারে ও ডিনারে শাক সবজি থাকা চাই
  • দিনে একটি করে ফল খাবার অভ্যেস করুন।

ডেলিভারির পর আদর্শ ডায়েট প্ল্যান

নিচে আপনার জন্য একটি উপযুক্ত ডায়েট প্ল্যানের নমুনা দেওয়া হল।

ব্রেকফাস্ট   স্ন্যাক   লাঞ্চ   স্ন্যাক  ডিনার
 রবিবারপাউরুটি, একটি ডিম সেদ্ধ, আঙুর আপেল ভাত, ডাল,    সবজি, চর্বিহীন মাংস।      জুস  রুটি ও সবজি
 সোমবারকর্ন ফ্লেক্স ও    দুধ মুসাম্বি লেবু ভাত, ডাল,    সবজি, মাছ    পি নাট বাটার দিয়ে এক পিস পাউরুটি    রুটি ও    সবজি
 মঙ্গলবার পাউরুটি, একটি ডিম সেদ্ধ, আঙুর আমন্ড চার থেকে পাঁচটি ভাত, ডাল,    সবজি, মাছজুস  রুটি ও    সবজি
 বুধবারকর্ন ফ্লেক্স ও    দুধচিজ বিস্কুটভাত, ডাল,    সবজি, স্যালাডছোলা ও মটর    মাখা রুটি ও    সবজি
 বৃহস্পতিবার   পাউরুটি, একটি ডিম সেদ্ধ, আঙুর    জুস ভাত, ডাল,    সবজি, মাছ মুড়ি মাখারুটি ও    সবজি
 শুক্রবার 

ওটমিল

চিজ বিস্কুট ভাত, ডাল,    সবজি, চিকেন স্যুপপি নাট বাটার দিয়ে এক পিস পাউরুটিরুটি ও    সবজি
  শনিবারপাউরুটি, একটি ডিম সেদ্ধ, আঙুরআমন্ড চার থেকে পাঁচটিভাত, ডাল,    সবজি, মাছছোলা ও মটর    মাখারুটি ও    সবজি

এই সময়ে কি খাওয়া উচিত তা সম্পর্কে নিশ্চয়ই ধারণা হয়ে গেছে আপনার। তাহলে নিজের ও বাচ্চার শরীরের কথা ভেবে স্বাস্থ্যকর খাবার খান। ডাক্তারের সঙ্গে নিয়মিত যোগযোগ রাখতে ভুলবেন না কিন্তু। নিজের ও বাচ্চার যত্ন করুন।

প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী :

1. প্রসবের পরে দেশি কি ঘি খাওয়া উচিত?

উঃ হ্যাঁ, অবশ্যই খাওয়া যায়। এটি শরীরের পক্ষে খুবই উপকারী।

2. প্রসবের পরে ঘরোয়া টোটকা কি খাওয়া উচিত ?

উঃ হ্যাঁ, খেতেই পারেন। তবে ঘরোয়া টোটকার মধ্যে কি আছে তা জেনে নিতে ভুলবেন না। তবে এ ব্যাপারে ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া উচিত।

References :

1. Diet for Breastfeeding Mothers by Children’s Hospital of Philadelphia
2. INFANT NUTRITION by Missouri Department of Health and Senior Services